বিশ্বকাপে এবার ব্যবহার হবে গোললাইন টেকনোলজি

গত দক্ষিণ আফ্রিকা বিশ্বকাপে জার্মানি -ইংল্যান্ড ম্যাচের কথা মনে আছে ? ওই ম্যাচে ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পা্র্ডের গোল করা সত্ত্বেও ওই গোল বাতিল করা হয়েছিল ৷ ওই সময় ইংল্যান্ড ২-১ গোলে পিছিয়ে ছিল ৷ ওটা রেফারি গোল দিলে ম্যাচের ফল হতো ২-২ ৷ কিন্তু রেফারি ল্যাম্পার্ডের গোল বাতিল করেন ৷ বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে জার্মানি ওই ম্যাচটি ৪-১ গোলে জেতে ৷ ম্যাচের পরে হাজারো বিতর্ক তৈরি হয়েছে ল্যাম্পার্ডের গোল নিয়ে ৷ ওটা গোল ছিল কী ছিল না তা নিয়ে অনেক পানি বয়ে গিয়েছে ৷

শুধু ল্যাম্পার্ডের গোল নয়, প্রতিটি বিশ্বকাপেই গোল বিভ্রাট দেখা গিয়েছে৷ কখনও রেফারি নায্য গোল বাতিল করেছেন৷ আবার কখনও গোল দিয়ে বিতর্ক বাড়িয়ে দিয়েছেন ৷ এবার সেই বিতর্কের দিন শেষ হতে চলেছে ৷

ব্রাজিল বিশ্বকাপে গোললাইন টেকনোলজি ব্যবহার করা হবে ৷ ১২টি স্টেডিয়ামে অত্যাধুনিক ১৪টি ক্যামেরা বসানো হচ্ছে ৷ ওই ক্যামেরা গুলো প্রতিটি সেকেন্ডে ৫০০টি করে ছবি তুলবে ৷ ব্রাজিলে বিভিন্ন ম্যাচে ২৪০০ বার ব্যবহার করা হয়েছে এই ষন্ত্রগুলিকে ৷প্রতিটি পরীক্ষায় পাস করে গিয়েছে গোললাইন টেকনোলজির যন্ত্রগুলি ৷ রেফারির হাতে একটি বিশেষ ঘড়ি থাকবে ৷ গোল হলেই রেফারির হাতের ঘড়ি জলজল করবে ৷ তাহলেই গোল নিয়ে বিতর্ক বন্ধ হবে ৷ এখন দেখার বিষয় ব্রাজিল বিশ্বকাপে এই গোললাইন টেকনোলজি কতখানি সফল হয় ৷

সূত্র: নতুনবার্তা

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail