সঙ্গীর জীবনে খুব খারাপ সময় যাচ্ছে ? কী করবেন জেনে নিন

amitumi_sad couple

যদিও সম্পর্ক দুজনের মাধ্যমে তৈরি হয় কিন্তু যদি কেউ একজন সমস্যায় থাকেন তাহলে তার প্রভাব দুজনের ওপরেই সমানভাবে পড়ে। অনেক সময় হয়তো সঙ্গী প্রকাশ করেন না নিজের বিষণ্ণতার কথা, ফ্রাস্ট্রেশনের পড়ার কথা কিন্তু তারপরও মুখের ভাব এবং ব্যবহারেই অনেক কিছু বোঝা যায়। সম্পর্কে সবচাইতে বড় সমস্যাগুলো বেঁধে যায় এই সময়টাতেই। সঙ্গী হয়তো আশা করেন আপনার সাপোর্ট কিন্তু আপনি না বুঝে সঙ্গীর কাছ থেকে স্বাভাবিক আচরণ আশা করছেন। দুজনের আশা পূরণ হয় না এবং ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়। তাই সঙ্গীর বিপদে কীভাবে সাপোর্ট করবেন তা জানা থাকাও অনেক জরুরী সম্পর্ক সঠিক রাখার জন্য। সঙ্গী যদি খুব খারাপ সময়ে থাকেন তাহলে জেনে নিন আপনার কর্তব্য কী হতে পারে।

১) না বুঝেই কোনো কথা বলে বসবেন না

সঙ্গীর বিপদের সময় বা খারাপ সময়ে না বুঝেই হুট করে কোনো কাজ বা কথা বলে বসবেন না একেবারেই। যদি সঙ্গীর বিপদের সময় নাও বুঝতে পারেন তারপরও একটু চুপ থেকে জেনে নেয়ার চেষ্টা করুন আসলেই সমস্যা কোথায়। সঙ্গীর ব্যবহারে আগে থেকেই ধরে নিয়ে কিছু বলবেন না, মোট কথা জাজমেন্টাল হবেন না। প্রথমে বুঝে নিন।

২) সঙ্গীর মানসিক শক্তি যোগান

যদি দেখেন সঙ্গী একেবারেই ভেঙে পড়েছেন তাহলে যতোটা সম্ভব সঙ্গীর মানসিক শক্তি বাড়ানোর চেষ্টা করুন। বিপদের সময় সঙ্গীর মুখের ‘আমি তোমার সাথে আছি’, ‘ভরসা রাখো, সব ঠিক হয়ে যাবে’ এই ধরণের সান্ত্বনার কথাও অনেক কাজে দেয়। মনে সাহস যোগায় এবং মানসিক শক্তি আসে।

৩) ধৈর্য ধরুন

হতে পারে খারাপ সময়ে সঙ্গীর মানসিকতা সঠিক নাও থাকতে পারে। তিনি যদি আপনার সাথে খারাপ ব্যবহারও করেন তবে যা অবশ্যই আপনাকে খুব বেশী কষ্ট দেয়া নয়, সীমার মধ্যে আপনি ধৈর্য ধরে সহ্য করে যান। তাকে তার স্বাভাবিক নিয়মে এবং সময়ে ফিরে আসা পর্যন্ত সময় দিন। আপনিও আশা হারিয়ে ফেললে চলবে না।

৪) সঙ্গীর সাথে থাকার চেষ্টা করুন

বিপদের সময় সবচাইতে বেশী জরুরী একজন মানুষের পাশে থাকা। যেন নিজেকে একলা না ভাবেন সঙ্গী, না ভাবেন যে তার বিপদের সময় তিনি কাউকে পাচ্ছেন না। আপনি তার পাশে থাকার চেষ্টা করুন। তাকে যদি কথা বলে বা বুঝিয়ে না হলেও তার প্রয়োজনে পাশে থাকাটাও অনেক বড় ব্যাপার।

৫) সঙ্গীর মনোযোগ অন্য দিকে নেয়ার চেষ্টা করুন

বিপদের কথা সব সময় মনে পড়বে তা খুবই স্বাভাবিক, এবং এর থেকে বিষণ্ণতা আরও বৃদ্ধি পাওয়াও স্বাভাবিক একটি ব্যাপার। তাই সঙ্গীর মনোযোগ এই বিপর্যয়ের সময়ে অন্য দিকে নিয়ে তাকে একটু আনন্দ দেয়ার চেষ্টা করে দেখতে পারেন। এতে আপনার প্রতি তার আস্থা বাড়বে, তিনি নিজেও একটি স্বস্তি পাবেন।

facebooktwittergoogle_plusredditpinterestlinkedinmail